হরিনাকুন্ডুকে শান্তির জনপদ গড়তে ওসি’র বিরামহীন প্রচেষ্টা সচেতন মানুষের মনে আশার আলো জাগাচ্ছে।

387

হরিনাকুন্ডুকে শান্তির জনপদ গড়তে ওসি’র বিরামহীন প্রচেষ্টা সচেতন মানুষের মনে আশার আলো জাগাচ্ছে।

স্টাফ রিপোর্টার,ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের উত্তর পশ্চিম অঞ্চলের উপজেলা হরিনাকুন্ডুকে শান্তির জনপদ হিসেবে গড়ে তুলতে নবাগত অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলামের বিরামহীন প্রচেষ্টা সচেতন নাগরিক মহলে আশার আলো সঞ্চার করছে।। ধান পান কলা আর লালনের মরমী গানকে বুকে ধারণ করে বেড়ে উঠছে এ জনপদের গনমানুষ। স্বাধীনতা উত্তর জাসদ গনবাহিনী পরবর্তীতে সর্বহারা নামে নিষিদ্ধ চরমপন্থী দলের অস্ত্রের ঝনঝনানি এ জনপদের মানুষের ঘুম কেড়ে নেয়। ক্রসফায়ারসহ অন্তর্দলীয় কোন্দলে একে একে বাঘা বাঘা চরমপন্থী নেতা কর্মীরা নিঃশেষ হতে থাকে। পাশ্ববর্তী কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গাসহ বিভিন্ন সীমান্তবর্তী অঞ্চলের বিপথগামী চরমপন্থীরা চোরা চালান, মাদক কারবারী, আদম ব্যবসায়ী, নারী পাচারসহ নানা অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ে। এরই প্রভাব পড়ে উঠতি বয়সী কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের মনের উপর।

উর্বর পলিমাটি পরিবেষ্টিত জনপদের কৃষিজীবী মানুষেরা অল্প পরিশ্রমে সোনালী ফসল ঘরে তুলে মনের সুখে সারা বছর অতিবাহিত করতে পারে অনায়াসে। কঠোর পরিশ্রম বিমুখ মানুষগুলো হয়ে উঠে প্রচন্ড আবেগ প্রবন। পারিবারিক সামাজিক জীবনে সামান্য কিছু বিষয়ে মান অভিমান করে নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বেছে নেয় আত্মহত্যার পথ। পুরুষদের তুলনায় উঠতি বয়সী নারীরাই আত্মহত্যার পথে পা বাড়ায় বেশি। নিয়ন্ত্রহীন আবেগই অস্বাভাবিক মৃত্যুর প্রধান কারন বলে মনে করেন সমাজ সচেতন মহল।
অস্থির সামাজিক ব্যবস্থা, আকাশ সংস্কৃতির ছোবল, বেকারত্ব, ইন্টারনেট আসক্তিসহ সমসাময়িক নানাবিধ সমস্যার কারনে স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীরা হচ্ছে বিপথগামী। এসবের মধ্যে অসম বয়সীদের মধ্যে বাল্য বিয়ে, মাদক সেবন, যৌতুক, মোবাইল প্রতারণা, জঙ্গি সম্পৃক্ততা, মেয়েদের উত্যক্ততাসহ নানাবিধ অপরাধ প্রবনতা প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হরিনাকুন্ড সদর থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছুটে চলেছেন থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম। হরিনাকুন্ডু থানায় যোগদানের মাত্র মাস তিনেকের মধ্যে প্রায় বিশটির মত স্কুল কলেজ মাদরাসায় শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজিত সমাবেশে বাল্য বিয়ে, যৌতুক, মেয়েদের উত্যক্ত করা, মাদক, জঙ্গিবাদ, মোবাইল প্রতারনার মত সামাজিক ব্যধির কুফলের ক্ষতিকর দিক তুলে ধরার পাশাপাশি এর থেকে পরিত্রাণের উপায় উল্লেখ করে দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য দিয়ে আশার সঞ্চার করছেন সচেতন অভিভাবক মহলে।

উপজেলা সদরের ঐতিহ্যবাহী সালেহা বেগম মহিলা ডিগ্রি কলেজ মিলনায়তনে বুধবার বেলা এগারোটায় অধ্যক্ষ আলহাজ্ব এম মোক্তার আলীর সভাপতিত্বে এবং নজরুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মটিভেশনাল কর্মসূচিতে প্রধান আলোচক হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম। এসময় কয়েক শত শিক্ষার্থী-শিক্ষকের প্রানবন্ত উপস্থিতিতে শিক্ষকদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন ইন্তাজুল হক, জামাল উদ্দীন, আকমল হোসেন, মাহবুব মুরশেদ শাহীন, পারভেজ ইমাম আজাদ, আনিচুর রহমান প্রমুখ। অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম গনমাধ্যম কর্মীদের নিকট অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, সাম্ভব্য সল্প সময়ের ব্যবধানে উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই মোটিভেশনাল কর্মসূচি পালন করার মধ্য দিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের দেশ প্রেমিক নাগরিক হিসেবে গড়া তোলার চেষ্টা অব্যাহত রাখা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here