৪৮ ঘন্টা পার হলেও দুই আসামী গ্রেফতার নেই ক্ষুদ্ধ চিকিৎসকরা

103
৪৮ ঘন্টা পার হলেও দুই আসামী
গ্রেফতার নেই ক্ষুদ্ধ চিকিৎসকরা
স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ
৪৮ ঘন্টা পার হলেও ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ জমির মোহাম্মদ হাসিবুস সাত্তারকে মারপিট করা মামলার আসামী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক হারুন ও তার সহযোগী নাসিরকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। এ নিয়ে ঝিনাইদহের চিকিৎসকদের মাঝে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। আসামী গ্রেফতার না হওয়ায় মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা রয়েছেন আতংকে। এ ঘটনার প্রতিবাদে চিকিৎসকদের সংগঠন বিএমএ ঝিনাইদহ শাখা মহেশপুরে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে। পুলিশ সুপার আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে আসামীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম। জানা গেছে, গত রোববার (৭ নভেম্বর) বিকেল ৩টার দিকে মহেশপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন জ্বর আক্রান্ত হয়ে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য আসেন। বিকাল ৩টার দিকে টিকেট কাউন্টার বন্ধ ও চিকিৎসকদের কর্মঘন্টা শেষ হওয়ার বিষয়টি জানানোর পর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ জমির মোহাম্মদ হাসিবুস সাত্তারের সঙ্গে তার বাদানুবাদ হয়। এক পর্যায়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে কিল, ঘুষি ও চড় থাপ্পড় মেরে আহত করেন সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সম্পাদক হারুন। হাসপাতালের স্টাফরা এ সময় হারুন ও নাসিরকে একটি কক্ষে আটকে ফেলেন। কিন্তু প্রভাব খাটিয়ে পরে তারা ছাড়া পান। এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে মারধরের খবর ছড়িয়ে পড়লে জেলাব্যাপী চিকিৎসকদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন বিকালেই মহেশপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুন ও তার সহযোগী নাসিরের বিরুদ্ধে মহেশপর থানায় চাঁদাবাজী ও মারধরের মামলা হয়। কিন্তু ঘটনার ৪৮ ঘন্টা পার হলেও এখনো আসামীরা গ্রেফতার হয়নি। ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম মঙ্গলবার বিকালে জানান, পুলিশ সুপার আমাদের কাছ থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সময় নিয়েছেন। এ সময়ের মধ্যে আসামী গ্রেফতার না হলে চিকিৎসকরা নতুন কর্মসুচি দিতে বাধ্য হবে। বিষয়টি নিয়ে মহেশপুর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানান, আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছি দুই আসামী গ্রেফতারের জন্য, কিন্তু তারা এলাকায় নেই। প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের অবস্থান সনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও ওসি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here