যশোর পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক ও ড্রাইভারের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ

103
যশোর পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক ও ড্রাইভারের
বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ
স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ
ঝিনাইদহের মহেশপুরে একটি ইটভাটায় চাঁদাবাজী করতে গিয়ে হেনস্তা হয়েছেন পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর অফিসের পরিদর্শক জাহিদ হাসান ও তার ড্রাইভার হারুন অর রশিদ মানিক। এ ঘটনায় মহেশপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) যশোর সমম্বিত অফিসে পাঠয়ে দেওয়া হয়। অন্যদিকে সরকারী কাজে বাঁধা প্রদান ও জোর পুর্বক ব্যাগের মধ্যে এক লাখ কুড়ি হাজার টাকা ঢুকিয়ে মারধর করার দায়ে পাল্টা মামলা করেছেন পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর অফিসের পরিদর্শক জাহিদ হাসান। এ ঘটনা নিয়ে মহেশপুর ইটভাটা মালিক সমিতি ও পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর অফিস মুখোমুখি দাড়িয়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর অফিসের পরিদর্শক জাহিদ হাসান মহেশপুর থানায় দায়েরকৃত মামলায় উল্লেখ করেছেন, সোমবার বিকালে পরিবেশ সংরক্ষন আইনে দায়েরকৃত মামলার তদন্তে তারা মহেশপুরের শ্যামকুড় গ্রামের সীমান্ত ব্রিকস নামে একটি ইট ভাটায় যান। সেখানে যাওয়ার পর মেসার্স রাফি ব্রিকসের মালিক রুবেল, সীমান্ত ব্রিকসের মালিক লোকমান হোসেন ও ম্যানেজার মনিরুল ইসলাম তাকে হেনস্তা করেন। এক পর্যায়ে তার ব্যাগে এক লাখ কুড়ি হাজার টাকা ঢুকিয়ে চাঁদাবাজীর মিথ্যা অপবাদ দেয়। মামলা তদন্তে গিয়ে তাদের চড় থাপ্পড় মারা হয় ও তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ভেঙ্গে ফেলা হয় বলেও পরিদর্শক জাহিদ হাসান মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন। এ ঘটনায় তিনি মহেশপুর থানায় সোমবার রাত ১২টার দিকে ৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো দুই জনের বিরুদ্ধে সরকারী কাজে বাধার প্রদান, অবৈধ অবরোধ, মারপিট, যখম, মোবাইল ভেঙ্গে ক্ষতিসাধন, ভয়ভীতি ও হুমকী প্রদর্শনের অভিযোগ মামলা করেছেন, যার মামলা নং ০৪/২১। এদিকে মহেশপুর ইটভাটা মালিক সমিতির নেতা রুবেল ও সীমান্ত ব্রিকসের মালিক লোকমান হোসেন জানিয়েছেন, গত বছর ঘুষের টাকা না পেয়ে মহেশপুরে বেশ কয়েকটি ইটভাটা ভেঙ্গে কোটি কোটি টাকার ক্ষতি সাধন করে যশোর পরিবেশ অধিদপ্তর। সোমবার তারা আবারো চাঁদা নিতে মহেশপুর উপজেলার সীমান্ত ব্রিকসে আসেন। চাঁদা না দিলে তারা আবারো মামলা ও ইটভাটার ক্ষতি সাধন করার হুমকী দিলে তাদের এক লাখ কুড়ি হাজার টাকা দেওয়া হয়। পরবর্তীতে আমরা ঘুষের টাকাসহ তাদের পুলিশে সোপর্দ করি। সীমান্ত ব্রিকসের মালিক লোকমান হোসেন জানান, আমরা মহেশপুর থানায় চাঁদাবাজীর মামলা দায়ের করলে সেটি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) যশোর সমম্বিত অফিসে পাঠয়ে দেওয়া হয়। আমরা ওই অভিযোগ নিয়ে ঝিনাইদহ জেলার ইটভাটা মালিকরা এখন দুদকের যশোর অফিসে অবস্থান করছি বলে লোকমান হোসেন মঙ্গলবার বিকালে জানান। বিষয়টি নিয়ে মহেশপুর থানায় ওসি সাইফুল ইসলাম মঙ্গলবার বিকালে জানান, পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর অফিসের পরিদর্শক জাহিদ হাসান একটি মামলা করেছেন। সেটি রেকর্ড করা হয়েছে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। তিনি বলেন মহেশপুর ইটভাটা মালিক সমিতির পক্ষ থেকেও সরকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে একটি চাঁদাবাজীর মামলা করা হয়। কিন্তু আমরা সেটি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য যশোর দুদক অফিসে পাঠিয়ে দিয়েছি। কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহায়মেনুল ইসলাম পরিবেশ অধিদপ্তর ও মহেশপুর ইটভাটা মালিক সমিতির পৃথক দুটি মামলা দায়েরের খবরটি নিশ্চিত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here