“আব্দুল্লাহ “বি এম রেজাউল করিম

182

বি এম রেজাউল করিম

তোকে আর কেউ ছুঁতে পারবেনা
আঁচড় কাটতে পারবেনা শত চেষ্টায়ও।

আকাশ ফাটিয়ে ভয়ার্ত চিৎকারে তোকে আর খুঁজে ফিরতে হবেনা মায়ের কোল।

তুই এখন সবকিছুর উর্ধ্বে —
তোর এখন পিতৃ পরিচয়ের দরকার নেই।
দরকার নেই জন্মের ঠিকানা
দরকার নেই নার্স ডাক্তার
কোনকিছুই–
তুই না ডাক্তার হতে চেয়েছিলি,
সেবা করতে চেয়েছিলি সক্কলকে?

তোর চাওয়াকে স্যালুট জানাই আব্দুল্লাহ।

তোকে আমরা রাখতে পারলামনা আমাদের মাঝে
তুই মিশে গেছিস তারাদের সাথে
তুই জ্বলজ্বল করছিস পশ্চিম আকাশে  শুকতারা হয়ে।

তোর আলোয় যতবার নিজেকে দেখি
দুমড়ে মুচড়ে আবর্জনা হই এই সভ্য সমাজে
ভাবতে পারি না এই আমরাই
তোকে জন্ম দিয়েছিলাম
আমাদের কামনা মেটাতে
ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিলাম তোকে
তোর মায়ের সগোত্রে।

তোর পরিচয় কেউ জানলো না
জানলি না তুই নিজেও–

সাহস ক’রে এগিয়ে আসলো না তোর জন্মদাতা
সন্তানের লাশ বুঝে নিতে
বুকে তুলে নিয়ে বলল না ‘আমায় ক্ষমা করিস বাবা, আমিই
তোর কুলাঙ্গার পিতা
সাহস ক’রে আসলো না তোর মায়ের লাঞ্ছনাকারী
সত্যিকার প্রেম দিতে।

আমাদেরকে ক্ষমা করিস, বাবা।

বি এম রেজাউল করিম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here