শৈলকুপায় শাহিদা প্রাইভেট হাসপাতাল কি কসাই খানা ?

87

ঝিনাইদহ জুড়ে বে-সরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিকজুড়ে যখন চলছে তদন্ত, বন্ধ করা হয়েছে অনেকগুলি অবৈধ ক্লিনিক তখনও ফাঁক-ফোকর গলিয়ে কয়েকটি অবৈধ ক্লিনিকে চলছে সিজার সহ নানা কার্যক্রম। এসব ক্লিনিকে নেই অজ্ঞান ডাক্তার, নেই ডিপ্লোমা নার্স, নেই এমবিবিএস ডাক্তার। এমন কি কোন কোন ক্লিনিকে নেই কোন আয়াও। ক্লিনিকগুলো সেবার নামে কসাইখানাতে পরিণত হয়েছে। এদের মধ্যে অন্যতম ঝিনাইদহের শৈলকুপার শাহিদা প্রাইভেট হাসপাতাল । শহরের প্রাণকেন্দ্র কবিরপুরে ক্লিনিকটির অবস্থান ।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, আজ বুধবার দুপুরে এই শাহিদা ক্লিনিকে শর্মিলা নামের এক রোগী ভর্তি করা হয় সিজারের জন্য । কেউ কেউ বলছে সিজারের জন্য ৫০ হাজার আবার কেউ বলছে ২৫ হাজার আবার কারো মতে ২৫ হাজার টাকায় জটিল এই রোগীকে সিজারের জন্য ঠিক করা হয়। তবে সিজারের জন্য ১০ থেকে ১১ হাজার টাকা চার্জ হলেও এই রোগী কে ১৭ হাজার টাকায় কন্ট্রাক করে ক্লিনিকটির ম্যানেজার এমন তথ্য ক্লিনিকটির । জটিল অবস্থা হলেও ডাক্তার ভাড়া করে এনে সিজার করা হয় তবে মৃত্যুমুখে পড়েছে সেই সিজারিয়ান রোগী। তার ব্যাপকভাবে রক্তক্ষরণ হতে থাকে, তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় তড়ি-ঘড় করে ফরিদপুর মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে । জানা গেছে আগুনিয়াপাড়া গ্রামের বিধানের স্ত্রী শর্মিলা(৩২) কে সন্ধ্যার একটু আগে সিজারের জন্য ভর্তি করা হয়। এই রোগী অতি দারিদ্র হলেও ক্লিনিকটির মালিক সেবার পরিবর্তে ব্যবসাকেন্দ্র হিসাবে পরিণত করেছে ক্লিনিকটি। শাহিদা ক্লিনিকের মালিক শাহ নেওয়াজ পারভেজ মিলন স্বীকার করেছেন, সিজারের পর অতিরিক্ত রক্ষক্ষরণ হয়েছে।
এদিকে ক্লিনিকে গিয়ে তাদের কোন রেজিস্ট্রেশন খাতাপত্র পাওয়া যায়নি। সেসব খাতা ডাক্তার বগলদাবা করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বড় ধরনের জালিয়াতি চক্র জড়িত রয়েছে ক্লিনিকটির সাথে ।
এ ব্যাপারে ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন সেলিনা বেগম জানান, ঘটনাটি তাদের জানা নেই তবে এখন জানতে পেরেছেন, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here