সফল উপ-উপাচার্য ও আদর্শ শিক্ষক প্রফেসর ড.মোঃ শাহিনুর রহমান

74

সম্রাট শাহ্ ঝিনাইদহ –
প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান  একাধারে একজন শিক্ষক, গবেষক,  লেখক, কলামিস্ট,  লোকবিজ্ঞানী, এবং কণ্ঠশিল্পী। তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের জ্যেষ্ঠ অধ্যাপক ও উপ-উপাচার্য।২০১৩ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত তিনি উপ-উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমানের রয়েছে একটি বর্ণাঢ্য শিক্ষকতা জীবন। তিনি মাত্র ২৪ বছর বয়সে ১৯৯১ সালে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগে প্রভাষক হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন।

একই বছর তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রভাষক হিসাবে যোগদান করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৯৮-২০০০ সাল পর্যন্ত দুই বছর সহযোগী প্রশিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।তারপর  ২০০৪ সালে অধ্যাপকে পদে উন্নীত হন। এছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়  ও জগন্নাথ  বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে অধ্যাপনা করেছেন। উল্লেখ্য, তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা ইন্সটিউটে পরিচালক পদে এবং ইংরেজি বিভাগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগের সভাপতির দায়িত্ব পালনসহ সোস্যাল ওয়েলফেয়ার ও ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি’র দায়িত্ব পালন করেন। ডা. শাহিনুর রহমান ২০০৬ সালে মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদসহ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়সহ আরো অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে সিন্ডিকেট সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এ সকল দায়িত্ব ছাড়াও ড. শাহিনুর রহমান বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক, সহকারী অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদের নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ডের বিশেষজ্ঞ সদস্য হিসাবে কাজ করছেন।

তারপর পাবলিক সার্ভিস কমিশনের বিসিএস ক্যাডার নিয়োগ বোর্ডের  বিশেষজ্ঞ সদস্য ছিলেন। এছাড়াও  দায়িত্ব পালন করেছেন বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের প্রেসিডিয়াম মেম্বার হিসেবে।

তিনি ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৩ থেকে ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ পর্যন্ত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। উপ-উপাচার্য পদে থাকাকালীন সময় সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছেন এজন্য পরবর্তীতে পুনরায়  আবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ তারিখে উপ-উপাচার্য হিসাবে নিয়োগ পান। তিনিই সর্বপ্রথম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ঊধ্বর্তন প্রশাসক হিসেবে সফল ভাবে মেয়াদপূর্ণ করার গৌরব অর্জন করেন।অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়কে  বিজ্ঞান-মনস্ক, প্রগতিশীল, সেশনজট মুক্ত, দুর্নীতিমুক্ত ও আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে কাজ শুরু করেন।

প্রফেসর ড. শাহিন দায়িত্বগ্রহণের পর থেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অগ্রগতি ও সফলতা লাভ করেন।তাঁর সময়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মেগা প্রকল্পের আওতায় অবকাঠামোগত  এবং একাডেমিক উন্নয়নের জন্য ৫৩৭ কোটি টাকা বরাদ্দ পায়।  এছাড়া তাঁর কার্যকালে  ৫ বছর মেয়াদী মডেল অর্গানোগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন কর্তৃক অনুমোদিত হয়, বেশ কয়েকটি নতুন বিভাগ চালু করে মোট  ৩৪টি বিভাগ করা হয়, বিদেশী শিক্ষার্থীদের ভর্তি,  কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী অটোমেশন, রেজাল্ট প্রসেসিং সফটওয়ার সংযুক্তকরণ, কেন্দ্রীয় ল্যাবরেটরী ও ইনোভেশন ল্যাব স্থাপন করা হয়। তাঁর সময়ে  দীর্ঘ ১৬ বছর পর ৪র্থ সমাবর্তন-২০১৮ আয়োজন সম্পন্ন করা হয় যা এ যাবত কালের সবচেয়ে বৃহৎ সমাবর্তন। বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপনে তিনি মুখ্য ভুমিকা রেখেছেন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান শিক্ষার্থীবান্ধব শিক্ষক হিসেবে শিক্ষার্থীদের কাছে হয়ে উঠেছেন একজন আদর্শ শিক্ষক। প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করতে অনেক ব্যাস্ত সময় পার করলেও তিনি কখনই ক্লাসে অনিয়মিত হননি। গত ৮ বছরে উপ- উপাচার্য পদে থাকাকালীন তিনি নিয়মিত বিভাগে ক্লাস নিয়েছেন এবং করোনাকালে অনলাইনে পাঠদান অব্যাহত রেখেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বস্তরের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের কাছে তিনি অত্যন্ত প্রিয় ও শ্রদ্ধাভাজন। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে জাতির প্রতি দায়িত্ববোধ থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন । ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ডা. শাহিনুর রহমানের  উপ- উপাচার্যের মেয়াদ শেষ হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here