ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র জমকালো প্রচারণা, ১৩ পদে লড়ছেন ২৩ জন প্রার্থী

128

ঝিনাইদহ অনলাইনঃ
পোস্টারে ছেঁয়ে গেছে জেলা উপজেলার বিভিন্ন সড়ক ও হাটবাজার। বিরামহীন প্রচারণায় মুখরিত জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী পরিষদে এ বছর প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ২৩ জন হেভিওয়েট প্রার্থী। বিভিন্ন মিডিয়ায় কর্মরত ৩৮ জন সাংবাদিক শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টার মধ্যে তাদের ভোট প্রদান করবেন।


ঝিনাইদহ জেলা শহরপ্রাণ কেন্দ্রে ২০০০ সাল থেকে তিলতিল করে বেড়ে ওঠা সংগঠনটি ২১ শতকের শুরুতেই বেশ নড়েচড়ে উঠেছে। সম্প্রতি একঝাঁক ন্যায়নিষ্ঠ তরুন সংবাদকর্মীর কার্যক্রম চোখে পড়ার মত। প্রতিটি পদের প্রার্থীরা বিজয়ী হওয়ার জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। শহরের মোড়ে মোড়ে পোষ্টার, সামাজিক যোগাযোগ ছাড়াও বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরা-খবরের প্রচারনা জেলাব্যাপী সাড়া পড়েছে। ৫টি উপজেলা সদরের প্রেসক্লাবসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সাঁটানো হয়েছে শত শত পোষ্টার। দীর্ঘদিন সংগঠনের হাল ধরে থাকা একাধিকবার নির্বাচিত সভাপতি মীর মোঃ জিল্লুর রহমান জানান, জেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সংবাদসংশ্লিষ্ট কার্যক্রম স্বচ্ছতা ও জবাবদীহিতার ভিত্তিতে পরিচালিত হয়। ভোটের সময় এলেই একটি দুষ্টুচক্র তাদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য ফায়দা লোটার সুযোগ খুঁজে, এ বছরও অহেতুক একটি কুচক্রীমহলের প্রচেষ্টা আইনী লড়াই করে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে এখন থেকে রিপোর্টার্স ইউনিটি নিয়ে আর কোন বিতর্কের সুযোগ নেই। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাহিদুল এনাম পল্লব বলেন, ভাষা সৈনিক বীরমুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক পৌরমেয়র আমির হোসেন মালিতা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন। ৩ সদস্যের নির্বাচন কমিশনার একটি পরিচ্ছন্ন নির্বাচন উপহার দিতে যাচ্ছেন। নির্বাচনের মাধ্যমে সংগঠনটি আরো বেগবান হবে। বিগত সময়ের চেয়ে এ বছর অনেক শতস্ফুর্ত প্রচারনার মাধ্যমে প্রার্থীরা তাদের বিজয় নিশ্চিত করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। সভাপতি ৩, সাধারণ সম্পাদক ৩, সহ-সভাপতি ৪, যুগ্ম সম্পাদক ২, সাংগঠনিক সম্পাদক ২, প্রচার সম্পাদক ২ এবং নির্বাহী সম্পাদক পদ ছাড়াও অন্যান্য পদসহ ২৩ জন প্রার্থী এখন কোমর বেঁধে ভোটের মাঠে নেমেছেন। সংগঠনের কার্যক্রম গতিশীলসহ বিভিন্ন ওয়াদা নিয়ে প্রার্থীরা ৫ উপজেলার ভোটারের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। একাধিক ভোটারের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সংবাদিকদের স্বার্থসংশ্লিষ্টতা রক্ষায় কাজ করবেন এমন যোগ্য প্রার্থীরাই নির্বাচনে জয়লাভ করতে পারে বলে প্রাথমিক ধারণা পাওয়া যাচ্ছে। সময়োপযোগী অরাজনৈতিক এ সংগঠনকে এগিয়ে নিতে সবাই একতাবদ্ধ কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।
অপর দুই সহকারি নির্বাচন কমিশনার এ্যাড বদিউজ্জামান ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক মোঃ আবজাল হোসেন জানান, নির্বাচনের সকল প্রস্তুুতি সম্পন্ন হয়েছে। তপশীল ঘোষণার পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রার্থীদের কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। সুন্দর পরিবেশে দিনভর ভোট গ্রহণ ও ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here