ঝিনাইদহে প্রেমিকের মৃত্যু সইতে না পেরে প্রেমিকার আত্মহত্যা

358

ঝিনাইদহে প্রেমিকের মৃত্যু সইতে না পেরে আত্মহত্যা করে জীবন দিল প্রেমিকা মিনা (১৯)। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার ভোরে সদর উপজেলার কাতলামারী বাজারে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার কাতলামারী বাজারের প্রসাধনী ব্যবসায়ী প্রেমিক সুমন কুমারের মৃত্যুর পর থেকেই রাজনগর গ্রামের মকবুল হোসেনের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে মানষিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং মানুষের কাছে সুমন হত্যার প্রকৃত ঘটনা বলতে গেলে তার বাবা মা বাধা দেয় এতে সে আরও বেশি ক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে। তাছাড়া দুইদিন যাবৎ পানাহার বন্ধ করে অসুস্থ হয়ে পড়ে তাতে তার বাবা মা তার উপর আরও চড়াও হয় এবং মেয়েকে মারধর করে ঘরে আটকে রাখে। বৃহস্পতিবার রাতের কোন এক সময়ে প্রেমিকা মিনা আক্তার নিজ ঘরে গলাই ফাঁসদিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। উল্লেখ যে, গত মঙ্গলবার ভোর রাতে কাতলামারী বাজারের পাশের একটি আম বাগান থেকে সুমন কুমার (২৫) নামের যুবকের লাশ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। স্বজনদের অভিযোগ সুমনকে কৌশলে হত্যা করা হয়েছে। কাতলামারী বাজারে হিন্দুধর্মাবলম্বী সুমন কুমার প্রসাধী ব্যবসা করতেন। এঅবস্থায় এক মুসলিম মেয়ের সাথে প্রেমের সর্ম্পকে জড়িয়ে পড়ে। এঘটনায় মেয়ের পরিবার ক্ষুব্ধ হয়ে সুমনকে হত্যা করা হতে পারে বলে এলাকবাসী ধারণা করছেন। পাশাপাশি ঘটনাটি সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছেন তারা। এবিষয়ে কাতলামারী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই আনিচুর রহমান জানান, মিনা আক্তারের সাথে সুমন কুমারের গভীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু পারিবারিক ভাবে এই সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় মঙ্গলবার সুমনের মৃত্যুর পর বৃহস্পতিবার রাতে মিনা গলাই ফাঁসদিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, ময়নাতদন্ত শেষে হত্যা প্রমানিত হলে প্রকৃত অপরাধিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here